জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম – Banglainfoblog

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম : আপনাদের মধ্যে অনেকেই তাদের জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করতে চায়। আর আপনি যখন জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করবেন।

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম
জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম

তখন আপনার বেশ কিছু কাগজ পত্র লাগবে। এর পাশাপাশি আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে।

আর যখন আপনি সেই কাগজপত্র সহো সঠিক নিয়ম মেনে কাজ করত পারবেন। তখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধান করতে পারবেন।

আর আজকের আলোচনা তে আমি আপনাকে জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে বলবো। তো আপনি যদি সেগুলো সম্পর্কে জানতে চান।

তাহলে আজকের এই পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়ুন। তো আর দেরি না করে, চলুন সরাসরি মূল টপিকে ফিরে যাওয়া যাক।

জন্ম নিবন্ধন বয়স বাড়ানো বা কমানোর উপায়

আপনি এমন অনেক মানুষ কে খুজে পাবেন। যাদের কারো জন্ম নিবন্ধনে অনেক বেশি বয়স দেওয়া আছে।

আবার এমন অনেকেই আছেন, যাদের জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে অনেক কম বয়স দেওয়া আছে। তো আপনি চাইলে জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে থাকা বয়স পরিবর্তন করতে পারবেন।

তবে যখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর বয়স পরিবর্তন করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে উপযুক্ত প্রমান গুলো অনলাইন থেকে আপলোড করতে হবে।

যেমন ধরুন, আপনার একটি শিশু সন্তান রয়েছে। এবং সেই শিশুদের জন্ম নিবন্ধন করার জন্য টিকা কার্ড ব্যবহার করতে হয়।

কিন্তুু যখন আপনি সেই টিকা কার্ড ব্যবহার করে জন্ম নিবন্ধন করেন। এবং পরবর্তী সময়ে যদি সেই জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে ভুল হয়।

তাহলে আপনাকে পুনরায় টিকা কার্ড এর স্ক্যান কপির সাহায্য অনলাইনে আপনার শিশুর জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করার আবেদন করতে পারবেন।

আবার আপনি অনেক সময় কম্পিউটার এর টাইপিং মিসটেক হওয়ার কারনেও আমাদের জন্ম নিবন্ধনে থাক জন্ম তারিখে ভুল হয়ে থাকে।

যেমন, আপনার বয়স হলো, ১৯৯০ কিন্তুু আপনার জন্ম নিবন্ধন তৈরি করার সময় কম্পিউটারে ভুল টাইপিং করার কারনে ১৯৯৫ আসলো।

তো আপনার যদি এমন জন্ম তারিখে ভুল থাকে। তাহলে আপনি আপনার ডকুমেন্টস এর সাহায্য এই ধরনের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারবেন।

আর এই কাজের জন্য আপনাকে আপনার স্কুল সার্টিফিকেট, জাতীয় পরিচয়পএ কিংবা আপনার পাসপোর্ট কে প্রমানপএ হিসেবে দিতে পারবেন।

আর যখন আপনি এই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো দিয়ে জন্ম ‍নিবন্ধন সংশোধন এর আবেদন করবেন। তখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম তারিখ পরিবর্তন করতে পারবেন।

কিন্তুু আপনার কাছে যদি প্রমানপত্র হিসেবে কোনো ধরনের ডকুমেন্টস না থাকে, তাহলে কি করবেন? হ্যা, আপনি এমন অনেক মানুষকে খুজে পাবেন।

যাদের জন্ম নিবন্ধনে ভুল বয়স চলে এসেছে। কিন্তুু তাদের নিকট প্রমানপত্র হিসেবে কোনো ডকুমেন্টস না থাকার কারনে। তাদের ভুল জন্ম তারিখ এর জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারেনা। 

তো এই সময়ে যদি আপনার কাছে কোনো ধরনের প্রমানপত্র না থাকে। তাহলে আপনি আপনার পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয় পত্র কে প্রমানপত্র এর ডকুমেন্টস হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

কারন, এই ধরনের ডকুমেন্টস দিয়েও জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম তারিখ সংশোধন করা যায়

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করতে কি কি লাগে?

আজকের আলোচনায় আমি আপনাকে অবশ্যই জন্ম নিবন্ধনের বয়স সংশোধন করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে বলবো।

তবে তার আগে জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করতে যে সকল কাগজপত্র এর প্রয়োজন হয়। সেই কাগজপত্র এর তালিকা সম্পর্কে বলবো।

আর আপনি যখন আপনার জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করবেন। তখন এই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো আপনার সাথে রাখবেন। যেমন,

  1. পিতা অথবা মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র এর ফটোকপি। (যদি আপনার কোনো ডকুমেন্টস না থাকে)।
  2. শিশু জন্ম নেয়ার পর হাসপাতাল থেকে প্রদত্ত সনদ এর সত্যায়িত কপি।
  3. যেখানে জন্ম গ্রহন করেছে, সেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এর ছাড়পত্র।
  4. পুরাতন হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন। (যদি আপনার কাছে এখনও আগের হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন থাকে)।
  5. জাতীয় পরিচয়পত্র এর ফটোকপি।
  6. স্কুল সার্টিফিকেট যেমন, জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি ইত্যদি।

তো আপনি যদি কোনো কারনে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে থাকা জন্ম তারিখ পরিবর্তন করতে চান।

তাহলে আপনার যে সকল ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। সেই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস এর তালিকা উপরে প্রদান করা হলো। যে গুলোর সাহায্য আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম

দেখুন, আপনি যখন একটি জন্ম নিবন্ধন এর বয়স পরিবর্তন করতে চাইবেন। তখন অবশ্যই আপনার নিকট সঠিক বয়স প্রমানের প্রমানপত্র বা ডকুমেন্টস থাকতে হবে।

আর আপনি এই জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করার কাজটি অনলাইন থেকেও করতে পারবেন।

আর যখন আপনি সঠিক ভাবে অনলাইনে জন্ম তারিখ সংশোধন আবেদন করবেন। তখন আপনাকে উক্ত আবেদন কপি টি নিয় আপনার ইউনিয়ন পরিষদ / পৌরসভা কার্যালয়ে যেতে হবে।

আর তারপর তারা আপনার আবেদন টি যাচাই বাচাই করার পরে। আপনার জন্ম নিবন্ধনে থাকা ভুল জন্ম তারিখ সংশোধন করে দিবে।

ধাপ ১ঃ জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার ফরম পূরণ করুন

তো আপনি যদি অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করতে চান। তাহলে, 

  • আপনাকে বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু সনদ এর মূল ওয়েবসাইটে https://bdris.gov.bd/ যেতে হবে। 
  • আর যখন আপনি উক্ত ওয়েবসাইট এর মধ্যে প্রবেশ করবেন।
জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন
জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন
  • তখন আপনি জন্ম নিবন্ধন মেনু থেকে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন” নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন। 
  • আপনাকে সেই অপশন এর মধ্যে ক্লিক করতে হবে।

আর উক্ত অপশন এর মধ্যে ক্লিক করার পর আপনি ঠিক নিচের মতো একটি নতুন পেজে প্রবেশ করবেন।

online birth registration correction 2 online birth registration correction 2

তো উপরের অপশনে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর নম্বর এবং জন্ম তারিখটি দিয়ে অনুসন্ধান করুন। যদি আপনার দেওয়া তথ্য কোনো ধরনের ভুল না থাকে।

তাহলে আপনি পরবর্তী অপশনে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর তথ্য গুলো দেখতে পারবেন। আর এখন আপনাকে নিচের “নির্বাচন করুন” নামক অপশন এর মধ্যে ক্লিক করতে হবে।

এরপরে আপনার সামনে আরো একটি নতুন পেজ চলে আসবে। সেই পেজে আপনাকে একটি ফরম দেওয়া হবে। আর উক্ত ফরম এর মধ্যে থাক প্রত্যেকটি তথ্য দিয়ে সঠিকভাবে পূরন করবেন।

যখন আপনি উক্ত ফরম এর মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য গুলো সঠিকভাবে দিবেন। তারপর আপনাকে “Submit” বাটন এর মধ্যে ক্লিক করবেন।

আপনি আরোও দেখুন…

আর এই বাটনে ক্লিক করার পরে, আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করতে পারবেন।

তবে এখানে একটি কথা বলে রাখি। যখন আপনি অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করবেন।

তখন আপনাকে একটি অ্যাপ্লিকেশন আইডি দেওয়া হবে। আপনি অবশ্যই সেই আইডি কোড টি যত্ন সহকারে রেখে দিবেন।

কারন, এর মাধ্যমে আপনি পরবর্তী কাজ গুলো করতে পারবেন।

ধাপ ২ঃ আবেদনটি ইউনিয়ন/পৌরসভা/ কাউন্সিলর অফিসে জমা দিন

উপরের পদ্ধতি গুলো ফলো করার মাধ্যমে। আপনি আপনার ভুল জন্ম তারিখ এর জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করতে পারবেন।

তো এই আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর। আপনি সেই  অনলাইন আবেদন কপিটি প্রিন্ট করে নিবেন। যদি আপনার কাছে প্রিন্টার না থাকে।

তাহলে আপনি কোনো কম্পিউটার এর দোকান থেকে। উক্ত আবেদন কপি টি প্রিন্ট করে নিতে পারবেন। এরপর আপনাকে সেই আবেদন কপি ও বয়স প্রমানের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো সাথে নিবেন।

তারপর আপনি চলে যাবেন, আপনার ইউনিয়ন পরিষদ / পৌরসভা কার্যালয় / কাউন্সিল অফিসে। সেখানে গিয়ে আপনার সকল কাগজ পত্র গুলো জমা দিন।

এরপর আপনার জন্ম নিবন্ধন জন্ম তারিখ সংশোধন ফি প্রদান করবেন। যখন আপনি উপরের এই কাজ গুলো করতে পারবেন।

তারপর আপনার এই আবেদন টি উচ্চ কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হবে। এবং তারা আপনার কাগজ পএ যাচাই করে দেখার পর। যদি তারা আপনার আবেদন এর সত্যতা পায়।

তাহলে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর ভুল জন্ম তারিখ সংশোধন করতে পারবেন।

ধাপ ৩ঃ উপজেলা/উচ্চতর কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন ও প্রমাণপত্র জমা দিন

তো এইবার আপনাকে পুুনরায় সেই অনলাইন আবেদন কপি ও কাগজ পত্র গুলো উচ্চ কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠাতে হবে।

সেজন্য আপনাকে সরাসির উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট বয়স প্রমানের ডকুমেন্টস গুলো জমা দিতে হবে।

আর আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর জন্য কোন অফিসে যেতে হবে। এবং কখন আপনাকে সেই অফিসে যাওয়ার দরকার হবে।

এই যাবতীয় তথ্যগুলো আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জানতে পারবেন।

ধাপ ৪ঃ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন তথ্য যাচাই ও সনদ সংগ্রহ করুন

আর যখন আপনি এই কাজ গুলো শেষ করবেন। তারপর আপনাকে ৩ থেকে ৪ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

তারপর আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে থাকা তথ্য ‍গুলো পুনরায় যাচাই করে দেখুন। যদি আপনি যাচাই করে দেখেন, আপনার জন্ম নিবন্ধনে থাকা তথ্য গুলো ঠিক রয়েছে।

তাহলে আপনি আবার ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে সংশোধন করা জন্ম নিবন্ধন নিয়ে আসুন।

বে-আইনি কাজ থেকে বিরত থাকুন

দেখুন, আপনি যদি বৈধভাবে জন্ম নিবন্ধন এর বয়স সংশোধন করতে চান। তাহলে সেখানে কোনো সমস্যা নেই।

কিন্তুু আপনি যদি অবৈধ ভাবে কিংবা কোনো খারাপ উদ্দেশ্য এই ধরনের বয়স পরিবর্তন করেন। তাহলে কিন্তুু সেটা আইনের চোখে অপরাধ।

আর আপনি যদি নিজের ইচ্ছায় এই ধরনের অপরাধ এর সাথে জড়িত থাকেন।

তাহলে পরবর্তী সময় আপনাকে আইনি জটিলতার মধ্যে পড়তে হবে। তাই ভুলেও এই ধরনের অপরারমূলক কাজ করবেন না।

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন নিয়ে সাধারণ প্রশ্নের উত্তর

Q:জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার ফরম কোথায় পাবো?

A: আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন ফরম অনলাইনে ডাউনলোড করতে চান। তাহলে এখানে ক্লিক করে উক্ত ফরম টি ডাউলোড করে নিন।

Q: জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন করার উপায় কি?

A: এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি জন্ম নিবন্ধন এর সকল সংশোধন কাজ করতে পারবেন। 

Q: কিভাবে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবো?

A: যদি আপনি জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান। তাহলে এখানে ক্লিক করে যাচাই করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন নিয়ে শেষকথা

প্রিয় পাঠক, আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে যদি জন্ম তারিখ ভুল থাকে। তাহলে আপনি কিভাবে সেই ভুল জন্ম তারিখ সংশোধন করবেন।

আজকের আলোচনায় সেই নিয়ম গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। তো এরপরও যদি আপনার কোনো সমস্যা থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

আর আপনি যদি অজানা বিষয় গুলোকে খুব সহজ ভাষায় জানতে চান। তাহলে আমাদের সাথে থাকবেন। ধন্যবাদ, এতক্ষন ধরে আমার লেখা আর্টিকেল টি পড়ার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top