জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড | জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড ২০২৩

দেখুন, বর্তমান সময়ে একজন ব্যক্তি চাইলেই তার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর নম্বর এবং জন্ম তারিখ দিয়ে। খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করতে পারবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড | জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করুন

তবে আপনি যদি আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড (jonmo nibondhon online copy download) করতে চান।

তাহলে আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম ফলো করতে হবে (jonmo nibondhon check). আর যখন আপনি এই নিয়ম গুলো সঠিক ভাবে ফলো করতে পারবেন।

তখন আপনি খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই করতে পারবেন খুব সহজেই আমার দেখা নিয়মে। 

মূলত আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমি জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করার নিয়ম এবং জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড পিডিএফ গুলো সম্পর্কে ধাপে ধাপে জানিয়ে দিব। 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

আমাদের মধ্যে যারা অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড করতে চান অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড অনলাইন কপি,  জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড pdf পেতে চান। 

তারা সরাসরি বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু সনদ এর অফিসিয়াল ওয়েব সাইটে প্রবেশ করবেন।

অথবা আপনি চাইলে সরাসরি birth registration certificate check online এখানে ক্লিক https://everify.bdris.gov.bd করে উক্ত ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন। 

online birth registration bangladesh মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট।

তো যখন আপনি এই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করবেন। তখন আপনাকে আপনার জন্ম সনদ এর মধ্যে থাকা ১৭ ডিজিট এর নম্বর এবং জন্ম তারিখ টি উল্লেখ করে দিতে হবে।

এবং যখন আপনি এই তথ্য গুলো দিয়ে সার্চ করবেন। তখন আপনাকে পুনরায় নতুন একটি পেজের মধ্যে নিয়ে যাওয়া হবে।

আর সেই পেজটি থেকে আপনি জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি পিডিএফ ফাইল হিসাবে ডাউনলোড করতে পারবেন।

এবং পরবর্তী সময়ে আপনি আপনার কম্পিউটার থেকে সেই পিডিএফ ফাইলটি  প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

তবে আপনি যদি অনলাইন থেকে আপনার জন্ম নিবন্ধন কপি ডাউনলোড করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার জন্ম সনদ এর মধ্যে ১৭ ডিজিটের নম্বর থাকতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন (Birth Registration Online) করা আছে কিনা তা জানার জন্য (jonmo tarik diye nibondon bair kora) দেখার সহজ উপায় দেখে নিন।

অনলাইনে জন্ম সনদ যাচাই বা Birth Certificate Online Verify করার নিয়ম খুবই সহজ।

আর আপনি আপনার (online birth certificate check bd) জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করতে পারবেন। আর সেজন্য অবশ্যই আপনি নিচের ধাপ গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করার চেষ্টা করবেন। 

Step-1: Download Jonmo Nibondhon Copy

তো যেহেতু আপনি অনলাইন থেকে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন ।

সেহেতু অবশ্যই আপনাকে বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু সনদ এর মূল ওয়েবসাইট এর মধ্যে প্রবেশ করতে হবে।

আপনি চাইলে গুগলের মধ্যে (everify.bdris.gov.bd) এটি লিখে সার্চ করলে। সরাসরি উক্ত ওয়েবসাইট এর মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন। নতুবা আপনি চাইলে এখানে ক্লিক করেও সেই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারবেন। 

Step-2: Download Birth Certificate Online Copy

এরপর আপনার সামনে নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। এবং সেই পেজের সবার শুরুতেই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর ১৭ ডিজিট নম্বরটি বসিয়ে দিবেন।

আর তারপরে আপনি আপনার জন্ম সনদ এর মধ্যে থাকা জন্ম তারিখ প্রদান করবেন। তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা ভালো। 

সেটি হল, যখন আপনি আপনার জন্ম তারিখ প্রদান করবেন। তখন অবশ্যই (বছর-মাস-দিন) এই ফরমেটে আপনার বয়স উল্লেখ করার চেষ্টা করবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড

এবং সবশেষে আপনি একটি ক্যাপচা কোড দেখতে পারবেন। এখানে যোগ, বিয়োগ অথবা ছোট ছোট ক্যালকুলেশন দেওয়া থাকে।

আপনি সেই সহজ সহজ ক্যালকুলেশন এর সঠিক উত্তর গুলো দিয়ে ”সার্চ” অপশনে ক্লিক করবেন। 

Step-3: Download Jonmo Nibondhon Copy

তো যখন আপনি উপরের নিয়ম গুলো অনুসরণ করে সার্চ অপশনে ক্লিক করবেন। তখন আপনাকে পুনরায় আরও একটি নতুন পেজে নিয়ে যাওয়া হবে।

এবং সেই পেজের মধ্যে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর যাবতীয় তথ্য গুলো দেখতে পারবেন। 

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড

তো এখন আপনি চাইলেই এই নতুন পেজটি কে পিডিএফ ফাইল হিসেবে ডাউনলোড করে রাখতে পারবেন। নতুবা আপনি চাইলে সরাসরি এই পেজটি কে প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

আর এভাবেই আপনি একটি জন্ম সনদ এর অনলাইন কপি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। 

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আমাদের মধ্যে যে সফল মানুষ অনেক আগেই জন্ম নিবন্ধন করেছে। তাদের জন্ম নিবন্ধন সনদ এর মধ্যে একটি সমস্যা রয়েছে।

কারন, অনেক আগে রেজিস্ট্রেশন করা জন্ম নিবন্ধন সনদ গুলো বাংলা ভাষায় হাতে লেখা ছিল। এর পাশাপাশি এই ধরনের জন্ম নিবন্ধন গুলো তে ১৬ ডিজিট এর নম্বর দেওয়া আছে। 

কিন্তু আপনি যদি অনলাইনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান। কিংবা জন্ম নিবন্ধন এর কপি ডাউনলোড করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের মধ্যে ১৭ ডিজিট থাকতে হবে।

কিন্তু একটি বিশেষ পদ্ধতি রয়েছে। যে পদ্ধতি টি অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

আর এবার আমি আপনাকে সেই পদ্ধতি টি সম্পর্কে সঠিক ধারণা দিবো। যেন, আপনি খুব সহজেই ১৬ ডিজিট এর জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারেন।

  1. আর এই কাজ টি করার জন্য সবার প্রথমে আপনি আপনার হাতে জন্ম নিবন্ধন সনদটি নিন। যে জন্ম নিবন্ধন সনদ এর মধ্যে ১৬ ডিজিট রয়েছে। 
  2. এরপর আপনি সেই 16 ডিজিট এর সর্বশেষ পাঁচ (৫) টি ডিজিট এর আগে একটি শূন্য (০) যোগ করে দিন। 
  3. অথবা আপনি চাইলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর মধ্যে থাকা ১৬ ডিজিট এর প্রথম ১১ ডিজিট পরে একটি শূন্য (০) যুক্ত করে দিন। 
  4. তাহলে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ টি ১৬ ডিজিট থেকে ১৭ ডিজিটে রূপান্তর করতে পারবেন। 
  5. এবং পরবর্তী সময়ে অনলাইন থেকে এই জন্ম নিবন্ধন এর নম্বর দিয়ে আপনি উক্ত জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন। 

তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা উচিত। সেই কথাটি হল, বর্তমান সময়ে আধুনিক যুগ। আর এই আধুনিকতার ছোঁয়া সব ক্ষেত্রে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আর সে কারনে এখন ডিজিটাল পদ্ধতিতে জন্ম নিবন্ধন করা হচ্ছে। 

কিন্তুু আপনি যদি দেখেন যে, আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের মধ্যে ১৬ টি ডিজিট রয়েছে। তাহলে আপনি যত দ্রুত সম্ভব আপনার ইউনিয়ন পরিষদ.

সিটি কর্পোরেশন অথবা পৌরসভা কার্যালয়ে গিয়ে। আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধন টি আপডেট করে নিন। তাহলে পরবর্তী সময়ে আপনাকে আর এই ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না। 

জন্ম নিবন্ধন যাচাই 19860915428117351

দেখুন, আমি আলোচনার শুরুতেই আপনাকে একটা কথা বলেছি। আর সেই কথাটি হল, আপনার নিকট যদি একটি জন্ম নিবন্ধন সনদ এর ১৭ ডিজিটের নম্বর থাকে।

এর পাশাপাশি সেই জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম তারিখ টি থাকে। তাহলে কিন্তু আপনি খুব সহজেই অনলাইনে উক্ত জন্ম নিবন্ধন সনদ যাচাই করে নিতে পারবেন।

কিন্তু যদি কোনো কারণে আপনার জন্ম সনদের মধ্যে ১৬ টি ডিজিট থাকে। তাহলে কিন্তু আপনাকে ভিন্ন পন্থা অনুসরণ করে, জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হবে।

আর সে জন্য আপনাকে কি করতে হবে, তা কিন্তু উপরের আলোচনা তে বিস্তারিত বলেছি।

কেননা বর্তমান সময়ে অনলাইনে শুধুমাত্র সেই সকল জন্ম নিবন্ধন এর তথ্য গুলো অনলাইনে জমা আছে। যে সকল জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে ১৭টি করে ডিজিট আছে।

তাই অবশ্যই আপনি আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন সনদ টি ১৭ ডিজিটে রূপান্তর করার জন্য। আপনার ইউনিয়ন পরিষদ এর মধ্যে গিয়ে। আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধন সনদ কে ডিজিটালে পরিনত করুন।

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড PDF 

বিভিন্ন সময় আমাদের জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয়। তো যদি কখনো আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয়।

তাহলে আপনি সরাসরি গুগলের মধ্যে যাবেন। এবং তারপরে এই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করবেন।

আর যখন আপনি এই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করবেন। তখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনের নম্বর এবং জন্ম তারিখ টি উল্লেখ করে দিয়ে সার্চ করবেন।

আর তারপরে আপনি আপনার সেই জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে থাকা যাবতীয় তথ্য গুলো দেখতে পারবেন।

এখন আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহার করেন। তাহলে সরাসরি এই ওয়েবসাইট থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদ  প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

অথবা আপনি চাইলে উক্ত পেজ টি পিডিএফ ফাইল হিসাবে ডাউনলোড করে। পরবর্তী সময়ে প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

আর এই জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপির মাধ্যমে। আপনি আপনার যাবতীয় কাজ গুলো সম্পন্ন করতে পারবেন। তাই চেষ্টা করবেন অনলাইন থেকে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করে নেয়ার। 

নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা যায়?

আপনি যদি একজন সাধারণ জনগণ হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি কোন ভাবেই আপনার নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন না। কারণ আপনার যে নাম রয়েছে।

সেই নামে আরও হাজার হাজার মানুষ আছে। সে কারণে সাধারণ জনগণ কে এই ধরনের সুযোগ প্রদান করা হয়নি।

তবে আপনি যদি আপনার নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান। তাহলে আপনাকে সরাসরি আপনার ইউনিয়ন পরিষদ এর মধ্যে যেতে হবে।

যখন আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদ অথবা সিটি কর্পোরেশন কার্যালয় এর কাছে যাবেন। তখন আপনি খুব সহজেই আপনার নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন।

সেক্ষেত্রে যদি আপনার কাছে জন্ম নিবন্ধন সনদের নম্বরটি না থাকে। তাহলেও কিন্তু শুধুমাত্র নাম দিয়েই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন।

তবে সাধারণ জনগন হয়ে আপনি অনলাইন থেকে শুধুমাত্র নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন না। 

ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন যাচাই – Online Birth Certificate Check

বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের অনলাইন থেকে ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার প্রয়োজন হয়।

আর যখন আপনার কাছে জন্ম নিবন্ধন এর নম্বর এবং সেই জন্ম নিবন্ধন এর থাকা জন্ম তারিখ টি থাকবে। তখন আপনি খুব সহজেই অনলাইন থেকে যাচাই করে নিতে পারবেন।

কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় যে, আমরা যখন অনলাইনে মধ্যে আমাদের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে যাই। তখন আমরা আমাদের জন্ম সনদ সম্পর্কে কোন ধরনের তথ্য জানতে পারি না।

আর সেই সময় আমরা চিন্তায় পড়ে যাই এবং ভাবতে থাকি। কেন আমাদের জন্ম নিবন্ধন সনদ যাচাই করতে পারছি না।

তো আপনিও যদি কোনদিন এই ধরনের সমস্যার মধ্যে পড়েন। তাহলে জেনে রাখুন, মোট দুইটি কারণ রয়েছে। যে কারণ গুলোর জন্য আপনি অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারছেন না।

আর সেই কারণ গুলো সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। 

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য না পাওয়ার কারণ

অনেক সময় লক্ষ্য করা যায় যে, আমরা যখন অনলাইনে আমাদের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে যাই। তখন No Record  এই লেখাটি দেখায়।

আর আমি উপরেই আপনাকে বলেছি যে, অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন এর তথ্য না দেখানোর দুইটি কারণ রয়েছে। আর সেই কারণ গুলো হলোঃ 

আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ টি হাতে লেখা 

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত অনেক আগেই তাদের জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করেছেন।

তো ২০০১ সালের পূর্বে যে সকল মানুষ জন্ম নিবন্ধন এর জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। তাদের জন্ম নিবন্ধন গুলো হাতে লেখা ছিল।

এর পাশাপাশি সেই জন্ম নিবন্ধন গুলো তে ১৬ টি করে ভিজিট রয়েছে। আর সে কারণে অনলাইন এর মধ্যে এই ধরনের হাতে লেখা নিবন্ধন সনদ।

কিংবা ১৬ ডিজিট এর জন্ম নিবন্ধনের কোন ধরনের তথ্য অনলাইন সার্ভারে জমা নেই।

যার কারণে অনলাইনে আপনি যতবার এই জন্ম নিবন্ধন গুলো যাচাই করতে যাবেন। ততবার আপনাকে No Record দেখাবে।

তাই আপনারা যদি এমন সমস্যা হয়। তাহলে ভালো ভাবে লক্ষ্য করুন যে, আপনার জন্ম সনদটি কি হাতে লেখা নাকি আপনার জনসমদে 16 টি ডিজিট রয়েছে। 

জন্ম সনদ এর তথ্যে ভুল থাকা 

তবে আপনি যদি দেখেন যে আপনার জন্ম সনাদের মধ্যে ১৭ টি ডিজিট রয়েছে। এবং আপনার জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল ভাবে রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে।

কিন্তু তারপরেও অনলাইন থেকে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারছেন না।

তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে যে, আপনি যাচাই করার সময় তথ্য গুলো দিচ্ছেন, সে গুলো সঠিক নয়।

অর্থাৎ আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর নম্বরে ভুল রয়েছে কিংবা আপনি জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম তারিখ উল্লেখ করতে ভুল করেছেন।

যার কারণে অনলাইন থেকে আপনি আপনার জন্ম সনদ যাচাই করতে পারছেন না। তাই আপনি পুনরায় আপনার তথ্য গুলো সঠিক ভাবে প্রদান করুন।

তাহলে আপনি অনলাইন থেকে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন। এবং পরবর্তী সময়ে আপনি সেই জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন যাচাই করার নিয়ম

বিভিন্ন সময় আমাদের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার প্রয়োজন হয়। কেননা আপনি এমন অনেক মানুষ কে খুঁজে পাবেন। যাদের জন্ম নিবন্ধনে থাকা তথ্য গুলো তে ভুল রয়েছে।

আর যতক্ষণ পর্যন্ত আপনি সেই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করবেন না। ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি সেই জন্ম নিবন্ধন দিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় কাজ গুলো করতে পারবেন না।

তবে বর্তমান সময়ে আপনি চাইলে অনলাইনে আপনার ভুল তথ্য থাকা জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

কিন্তু যখন আপনি অনলাইনে আবেদন করবেন। তার পরবর্তী সময়ে এই আবেদনের কপি সংগ্রহ করে। আপনাকে সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভা কার্যালয় অথবা আপনার ইউনিয়ন পরিষদ এর মধ্যে গিয়ে জমা দিবেন।

এর পাশাপাশি আপনি যদি আপনার এই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর কার্যক্রম কতটুকু অগ্রসর হয়েছে তা জানতে চান। তাহলে আপনাকে এখানে ক্লিক করুন।

আর যখন আপনি উক্ত লিঙ্ক এর মধ্যে ক্লিক করবেন। তখন আপনার সামনে নতুন একটি ওয়েবসাইট ওপেন হবে।

আর সেই ওয়েবসাইট এর মধ্যে আপনি আপনার যাবতীয় তথ্য গুলো প্রদান করবেন। যেমন, প্রথমত আপনাকে আবেদন পত্রের ধরন উল্লেখ করতে হবে।

এবং তারপরে আপনার যে অ্যাপ্লিকেশন আইডি রয়েছে, সেটি প্রদান করতে হবে। এবং সবশেষে আপনি আপনার জন্ম সনদের মধ্যে থাকার জন্ম তারিখ টি উল্লেখ করে সার্চ করবেন।

তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধন এর বর্তমান অবস্থা দেখতে পারবেন। 

জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত সকল প্রয়োজনীয় তথ্য

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা কিভাবে দেখব?

উত্তরঃ  আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে যদি ১৭ ডিজিটের নম্বর থাকে। তাহলে আপনি খুব সহজেই সেই জন্ম নিবন্ধন টি অনলাইনে যাচাই করে নিতে পারবেন।

আর সেজন্য আপনাকে এই ওয়েবসাইট এর মধ্যেই প্রবেশ করতে হবে। এবং উক্ত ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরে প্রয়োজনীয় তথ্য গুলো দিয়ে। আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন। 

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আছে কিনা বুঝবো কিভাবে?

উত্তরঃ অনলাইনে শুধুমাত্র সেই সকল জন্ম নিবন্ধন এর তথ্য গুলো আছে। যে জন্ম নিবন্ধন গুলো তে 17 টি করে ডিজিট রয়েছে।

আর আপনি চাইলে আপনার জন্ম নিবন্ধন টি অনলাইন থেকে খুব সহজেই চেক করতে পারবেন। এভাবে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য গুলো অনলাইনে আছে কিনা। তা নিজের ঘরে বসে চেক করতে পারবেন।

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে ভুল থাকলে কি করব?

উত্তরঃ যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে থাকা তথ্য গুলো তে ভুল থাকে। তাহলে আপনি সেই জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় কাজ গুলো করতে পারবেন না।

সে জন্য অবশ্যই আপনাকে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করে নিতে হবে। আপনি চাইলে এখানে ক্লিক করে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। 

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন যাচাই অ্যাপস কোনটি?

উত্তরঃ  বর্তমান সময় পর্যন্ত কোন ধরনের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার অ্যাপস রিলিজ করা হয়নি।

তবে আপনি চাইলে বাংলাদেশ জন্ম ও মৃত্যু সনদ এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন। আর উক্ত ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য এখানে ক্লিক করুন। 

আমাদের শেষকথা

বিভিন্ন সময়ে আমাদের জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি ডাউনলোড করার প্রয়োজন হয়। তো আমরা অনেকেই জানিনা যে, কিভাবে জন্ম নিবন্ধন কপি ডাউনলোড করতে হয়।

আর যে মানুষ গুলো এই বিষয় টি সম্পর্কে জানেন না। তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলে আমি জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড করার উপায় গুলো দেখিয়ে দিয়েছি।

আশা করি, আজকের দেখানো পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করে। খুব সহজেই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন কপি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

সেই সাথে আপনি যদি এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো কে খুব সহজ ভাষায় জানতে চান। তাহলে আমাদের সাথে থাকার চেষ্টা করবেন।

আর ধন্যবাদ এতক্ষণ ধরে আমার লেখা আর্টিকে টি পড়ার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top