অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার নিয়ম

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন, যারা আসলে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার এর জন্য আবেদন করতে চান। তো যারা আসলে আবেদন করতে চাচ্ছেন, তাদের বলে রাখি বর্তমান সময় আপনি চাইলে নিজের ঘরে বসে অনলাইন থেকে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

তবে এই আবেদন করার জন্য আপনাকে কোন কোন নিয়ম মানতে হবে। এবং আপনার নিকট কোন কোন ধরনের ডকুমেন্টস থাকতে হবে। সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দেওয়ার জন্যই আজকের এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে। 

 

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করতে যা যা লাগবে

যদিও বা বর্তমান সময়ে অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইন থেকেও পল্লী বিদ্যুৎ মিটার এর জন্য আবেদন করা যায়। কিন্তু আপনি যখন অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনার নিকট বেশ কিছু ডকুমেন্টস থাকতে হবে। এর পাশাপাশি আপনার বেশ কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করার দরকার হবে। আর সেগুলো হলো,

  1. আপনার ব্যক্তিগত ছবি এবং জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদান করতে হবে।
  2. এর পাশাপাশি আপনার নিজের জমির সনদ কিংবা উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া জমির সনদ এর স্ক্যান কপি প্রদান করতে হবে।
  3. আপনার নিজস্ব বাসার হাউজ ওয়ারিং নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গ্রাউন্ড রডের ক্যাশ মেমো প্রদান করতে হবে।
  4. আপনার বাসায় কি কি ধরনের লোড রয়েছে, সে গুলো সঠিক ভাবে উল্লেখ করতে হবে। যেমন, ফ্যান, টিভি, লাইট, ফ্রিজ সকেট ইত্যাদি যাবতীয় তথ্য গুলো দিতে হবে।
  5. পল্লী বিদ্যুৎ এর সার্ভিস পোল থেকে আপনার বাসা কত দূরে রয়েছে তার সঠিক হিসাব প্রদান করতে হবে। সেজন্য অবশ্যই আপনাকে পোল থেকে বাসার দ্রুত মেপে নিতে হবে।
  6.  আপনি যে ট্রান্সফর্মার থেকে আপনার বাসায় বিদ্যুতের লাইন নিতে চাচ্ছেন। সেই ট্রান্সফরমারের পার্শ্ববর্তী গ্রাহকের বই নম্বর এবং হিসাব নম্বর জমা দিতে হবে। 
  7. আপনার বিদ্যুৎ সংযোগস্থল এর জমির মালিকানার তথ্য প্রদান করতে হবে। যেমন, দাগ নম্বর, খতিয়ান নম্বর ইত্যাদি। 
  8. পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদনকারীদের স্থায়ী ঠিকানা উল্লেখ করতে হবে।
  9. এছাড়াও যে ব্যক্তি আবেদন করবেন, সেই ব্যক্তির সম্পূর্ণ নাম এবং মোবাইল নম্বর এর প্রয়োজন হবে।

তো আপনি যদি আপনার বসত বাড়িতে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার নিতে চান। সেজন্য আপনার কোন কোন ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। সেই ডকুমেন্ট গুলোর তালিকা উপরে উল্লেখ করা হলো। যে গুলোর মাধ্যমে আপনি পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। 

 

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার শর্ত গুলো কি?

যেহেতু আপনি পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করতে চাচ্ছেন। সেহেতু অবশ্যই আপনাকে সবার আগে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার শর্ত গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। কেননা আপনি যদি এই শর্ত গুলো সঠিক ভাবে মেনে চলতে পারেন। তাহলে আপনি খুব দ্রুততার সাথে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার সংগ্রহ করতে পারবেন। আর সেই আবেদন করার শর্ত গুলো নিচে উল্লেখ করা হলো।

  1. যখন আপনি অনলাইনে আবেদন করবেন। তখন অবশ্যই আপনার সদ্য তোলা ছবি এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের স্ক্যান কপি দিতে হবে। 
  2. এছাড়াও আপনার স্থায়ী বসতবাড়ির যে সকল ডকুমেন্টস রয়েছে। তার বৈধ কপি প্রদান করতে হবে।
  3. আপনি যে পোল থেকে সার্ভিস নিতে চান। সেখান থেকে আপনার বসতবাড়ির দূরত্ব সর্বোচ্চ ১৩০ ফুট এর মধ্যে থাকতে হবে। 
  4. যদি আপনি এই দূরত্ব প্রদান করতে ভুল তথ্য দেন। তাহলে কিন্তু আপনার পল্লী বিদ্যুৎ মিটার পেতে অনেক বিলম্ব হতে পারে। তাই অবশ্যই সর্বদা সঠিক তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করবেন।
  5. আপনার বসতবাড়িতে যে পরিমাণ লোড এর দরকার হবে। তা অবশ্যই সঠিক ভাবে উল্লেখ করে দিবেন।
  6. কেননা আপনার বসত বাড়িতে যদি ৮০ কিলোওয়াট এর বেশি লোড প্রয়োজন হয়। সে ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই HT সংযোগের জন্য আবেদন প্রদান করতে হবে।
  7. এখন আপনি পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে আবেদন ফি, মেম্বারশিপ ফি এবং নিরাপত্তা জামানত নির্দেশনা মত প্রদান করতে হবে।

যদিও বা পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করার সময় খুব বেশি কিছু শর্ত মান্য করতে হয় না। তবে এই মিটারের আবেদন করার সময় আপনি যে সকল তথ্য প্রদান করবেন। সেই তথ্য গুলো সম্পূর্ণ সঠিক ভাবে দেওয়ার চেষ্টা করবেন। যেন আপনার প্রদান করা তথ্য গুলোর মধ্যে কোন ধরনের ভুল না থাকে। 

 

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার নিয়ম

এতক্ষণের আলোচনা থেকে আমরা জানতে পারলাম যে, পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করতে কি কি লাগে। এবং আবেদন করার সময় আমাদের কি কি শর্ত মানতে হবে। 

তো এবার আমি আপনাদের দেখিয়ে দিব যে, কিভাবে আপনি পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য অনলাইন থেকে আবেদন করতে পারবেন। আর আপনি যদি অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করতে চান। তাহলে আপনাকে নিচের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করতে হবে।

 

ধাপ ১ # আবেদন ফরম পূরণ করুন

যদি আপনি অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করতে চান। তাহলে সবার আগে আপনাকে আপনার মোবাইলে অথবা কম্পিউটারের মধ্যে একটি ব্রাউজার চালু করতে হবে। এবং সেই ব্রাউজার মধ্যে গিয়ে (www.rebpbs.com)  লিখে সার্চ করতে হবে। আপনি এখানে ক্লিক করে সরাসরি উক্ত ওয়েব সাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন। 

যখন আপনি উপরের লিংকে ক্লিক করবেন। তারপর আপনি নতুন একটি ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করবেন। তো সেই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করার পর আপনি মেনু অপশন থেকে ”আবেদন” নামক অপশন এর মধ্যে ক্লিক করবেন।

আর উক্ত অপশনের মধ্যে ক্লিক করার পরে, আপনার সামনে বড় একটি ফর্ম আসবে। যেখানে আপনাকে আপনার যাবতীয় তথ্য গুলো নির্ভুল ভাবে প্রদান করতে হবে। আর আপনি যখন অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনি সেই আবেদন ফরম এর মধ্যে তিন ধরনের তথ্য দেওয়ার অপশন দেখতে পারবেন। সে গুলো হল, 

  1. স্থায়ী ঠিকানা,
  2. প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ সংযোগ স্থল বিবরন,
  3. জিওগ্রাফি তথ্য,

তো এই ফর্মের মধ্যে যে সকল তথ্য গুলো বাংলায় দিতে বলা হবে। সেই তথ্য গুলো আপনি বাংলায় দিবেন এবং ইংরেজি তে যে সকল তথ্য দেওয়ার কথা বলা থাকবে। সে গুলো আপনি ইংরেজিতে দিবেন। তবে একটা কথা মনে রাখবেন, এখানে প্রদান করা তথ্য গুলোর মধ্যে যেন কোন ভুল না হয়। তাই অবশ্যই সতর্কতার সহিত এই ফর্মটি পূরণ করবেন। 

 

ধাপ ২ # আবেদন টি প্রিন্ট করুন

যখন আপনি উপরের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন। তখন আবেদন শেষ করার পর আপনাকে একটি ট্রাকিং নম্বর প্রদান করা হবে। এবং সেই সাথে আপনার নিকট একটি পিন নম্বর থাকবে। 

তো আপনি এই নম্বর গুলো অবশ্যই নিজের কাছে সংরক্ষণ করে রাখবেন। প্রয়োজনে কোথাও লিখে রাখবেন, যেন পরবর্তী সময়ে প্রয়োজন হলে আপনি তাৎক্ষণিক ভাবে সেগুলো প্রদান করতে পারেন। 

এর পাশাপাশি আপনি যে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন। সেই আবেদন কপিটি ডাউনলোড করে রাখবেন। এবং ডাউনলোড করা সেই আবেদন কপি কোন কম্পিউটারের দোকান থেকে প্রিন্ট করে নিবেন।

 

ধাপ ৩ # হাউজ ওয়্যারিং নিশ্চিত করুন

উপরের সকল ধাপ গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করার পর। এবার আপনাকে হাউজ ওয়ারিং নিশ্চিত করে নিতে হবে। আর আপনি যখন হাউস ওয়ারিং নিশ্চিত করবেন, তখন আপনার নিকট বসতবাড়ি নির্মাণের গ্রাউন্ড রডের সময় যে মেমো দেওয়া হয়েছিল। সেই মেমো এবং আপনার ট্রেকিং নম্বর ও পিন নম্বর প্রদান করতে হবে। 

আর উক্ত কাজ টি করার জন্য আপনি উপরের দেওয়া লিংকে ক্লিক করবেন। তারপর আবেদন নামক অপশন থেকে ”হাউজ ওয়ারিং নিশ্চিত করুন” এই লিংকে প্রবেশ করবেন। তারপর আপনি আপনার ট্রাকিং নম্বর ও পিন নম্বর দেওয়ার একটি অপশন দেখতে পারবেন। সেখানে আপনি আপনার নম্বর গুলো সঠিক ভাবে দেওয়ার পরে ”সাবমিট করুন” নামক বাটনে ক্লিক করবেন।

তারপর আপনার গ্রাউন্ড রডের যে ক্যাশ মেমো রয়েছে সেটির স্ক্যান করা ছবি আপলোড করবেন। সেই সাথে অবশ্যই আপনাকে আপনার বাড়ির ঠিকানা লিখতে হবে। এবং সবার নিচে আপনার একটি ক্যাপচা কোড দেখতে পারবেন। সেই ক্যাপচা কোডটি অবশ্যই সঠিক ভাবে পূরণ করে দিবেন। তারপরে আপনি আপনার প্রদান করা মোবাইল নম্বরে একটি এসএমএস দেখতে পারবেন। যেখানে আপনার হাউজ ওয়ারিং নিশ্চিত করণের বার্তা পাঠানো হবে। 

 

ধাপ ৪ # সংযোগ ফি পরিশোধ করুন

যখন আপনি উপরের পদ্ধতি গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করবেন। এবং অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার এর জন্য আবেদন করবেন। তারপর আপনাকে সংযোগ ফি প্রদান করতে হবে। আর বর্তমান সময়ে আপনি মোট দুই (০২) টি পদ্ধতির মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন এর ফি প্রদান করতে পারবেন। আর সেই পদ্ধতি গুলো হল,

  1. সরাসরি বিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে,
  2. রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে,

মূলত আপনি যখন পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন। তখন আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি প্রদান করতে হবে। আর কিভাবে আপনি সেই ফি প্রদান করতে পারবেন তা উপরে বলা হয়েছে। তবে আপনি যদি রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে এই ফি প্রদান করতে চান। তাহলে আপনাকে নিচের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করতে হবে।

Loading Image, Please wait…… 

 

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন ফি কত টাকা? 

এতক্ষণ ধরে আমরা পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে জানতে পারলাম। তো এখন অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে। সেটি হলো, পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন ফি কত টাকা। আর আপনি যদি এই বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চান। 

তাহলে আমি আপনাদের বলব যে, আপনি যখন আবেদন করবেন। তখন আপনার 115 টাকা দিতে হবে, কারণ এটি হলো আবেদন ফি। কিন্তু আপনাকে মিটারের জন্য আলাদা ভাবে 450 টাকা প্রদান করতে হবে। মূলত এটি হলো পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন ফি। 

Q: পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য কি করতে হয়?

A: যদি বিভিন্ন কারণে আপনার পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের দরকার হয়। তাহলে আপনাকে অনলাইনে কিংবা অফলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের জন্য আবেদন করতে হবে। এবং এই আবেদন করার সময় অবশ্যই আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো প্রদান করতে হবে। 

Q: পল্লী বিদ্যুৎ আবেদন অনুসন্ধান করার লিংক কোনটি? 

A: আপনি চাইলে খুব সহজেই এখানে ক্লিক করে আপনার পল্লী বিদ্যুৎ আবেদন অনুসন্ধান করে নিতে পারবেন। তবে তার জন্য অবশ্যই আপনার ট্রাকিং নম্বর এবং পিন নম্বর দরকার হবে। যে গুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার অনলাইন আবেদন টি অনুসন্ধান করে নিতে পারবেন। 

Q:পল্লী বিদ্যুৎ সংক্রান্ত অভিযোগ করার লিংক কোনটি? 

A: আপনি যদি পল্লী বিদ্যুৎ এর সংযোগ নিয়ে থাকেন। এবং তাদের সংযোগ সম্পর্কিত যদি কোন ধরনের অভিযোগ থাকে। তাহলে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার অভিযোগ দায়ের করতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে এখানে ক্লিক করতে হবে। 

তারপর আপনাকে আপনার নাম, ঠিকানা, ইমেইল এড্রেস সঠিক ভাবে দেওয়ার পরে। আপনার অভিযোগ টি লিখে তারপর পাঠিয়ে দিতে হবে। মূলত এভাবেই আপনি আপনার পল্লী বিদ্যুৎ সংক্রান্ত অভিযোগ দায়ের করতে পারবেন। 

 

আমাদের শেষকথা 

প্রিয় পাঠক, বিভিন্ন সময় আমাদের পল্লী বিদ্যুৎ মিটার এর দরকার হয়। আর এই দরকারের সময় আপনি আসলে কিভাবে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে মিটারের জন্য আবেদন করবেন। তার জন্য আপনার কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে। আজকে আমি আপনাকে সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দিয়েছি। 

আর আশা করি, আপনি আজকের এই লেখাটি থেকে অনেক উপকৃত হয়েছেন। তো আপনি যদি এই ধরনের উপকারী তথ্য গুলো বিনামূল্যে পেতে চান। তাহলে অবশ্যই আমাদের সাথে থাকার চেষ্টা করবেন। ধন্যবাদ, ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top